Professor's Recent bank job solution (2018-2019) Part - 02 এর ডাউনলোড লিংক এই পোষ্ট'টির শেষে পাবেন !

●➢কাজী নজরুল ইসলাম (১৮৯৯ – ১৯৭৬)★★
১। কাজী নজরুল ইসলাম কোন সালে জন্মগ্রহন করেন? উঃ ১৮৯৯ সালে
২। বাংলাদেশের রণসঙ্গীতের রচয়িতা কে? উঃ
কাজী নজরুল ইসলাম
৩। নজরুলের কোন কবিতা প্রকাশিত হলে তিনি
গ্রেফতার হন? উঃ আনন্দময়ীর আগমনে ৪। কাজী নজরুল ইসলামকে রবীন্দ্রনাথ তাঁর
কোন রচনাটি উৎসর্গ করন? উঃ বসন্ত
৫। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নজরুল তার কোন রচনাটি
উৎসর্গ করেন? উঃ সঞ্চিতা
৬। নজরুলের প্রথম প্রকাশিত গ্রন্থের নাম কি? উঃ ব্যথার দান ( ১৯২২)
৭। নজরুলের প্রথম প্রকাশিত কবিতার নাম কি? উঃ মুক্তি
৮। নজরুলের প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থের নাম কি?
উঃ অগ্নিবীনা
৯। নজরুলের কাব্যগ্রন্থগুলো কি কি? উঃ সন্ধ্যা, নতুন চাঁদ , ছায়ানট, প্রলয় শিখা , অগ্নিবীনা ,
সাত ভাই চম্পা, , সিন্দুহিন্দোল, ফনিমনসা, চক্রবাক,
সর্বহারা,ঝড় হাওয়া, জিঞ্জির, সাম্যবাদী, মরুভাস্কর,
শেষ সওগাত , ঝিঙ্গেফুল, বিষের বাশিঁ , দোলনচাঁপা
ছন্দে ছন্দে মনে রাখা যায়ঃ কোনো এক সন্ধ্যায় নতুন চাঁদ দেখার সময়
ছায়ানটে লাগা প্রলয় শিখার অগ্নিবীনা দেখে সাত ভাই
চম্পা, দোলনচাঁপা ও ফনিমনসারা চক্রবাক হয়ে
সর্বহারার মতো ঝড় হাওয়ার গতিতে জিঞ্জিরার দিকে
ছুটতে লাগল। সাম্যবাদী মরুভাস্করেরা শেষ সওগাত ঝিঙ্গেফুল ও বিষের বাশিঁ হাতে নিয়ে
সিন্দুহিন্দোলের দিকে এগিয়ে চললেন।
১০। নজরুলের উপন্যাসগুলো কি কি? উঃ বাঁধনহারা,
কুহেলিকা ও মৃত্যুক্ষুধা।
১১। নজরুলের গল্পগ্রন্থগুলোর নাম কি? উঃ শিউলিমালা, ব্যথারদান ও রিক্তের বেদন।
১২। কাজী নজরুল ইসলাম কোন সালে প্রথম ঢাকায়
আসেন? উঃ ১৯২৬ সালে।
১৩। কাজী নজরুল ইসলাম মোট কতবার ঢাকায়
আসেন? ১৩ বার। ১৪। কাজী নজরুল ইসলাম কোন সালে মৃত্যুবরন
করেন? উঃ ১৯৭৬ সালে
…………………………………………
●➢কায়কোবাদ (১৮৫৭-১৯৫১) ★★
১। কায়কোবাদের প্রকৃত নাম কি? উঃ কাজেম আল
কোরেশী।
২। কায়কোবাদের বিখ্যাত কাব্যগ্রন্থগুলোর নাম কি
কি?
উঃমহাশ্মশান, অশ্রুমালা, বিরহ বিলাপ, কুসুমকানন, শিবমন্দির,
ও অমিয়ধারা।
৩। কোন ঘটনা অবলম্বনে কায়কোবাদের
মহাশ্মশান মহাকাব্যটি রচিত হয়?
উঃ পানি পথের তৃতীয় যুদ্ধের কাহিনী অবলম্বনে।
৪। বাঙ্গালী মুসলমান কবিদের মধ্যে প্রথম মহাকাব্য
রচনা করেন কে? উঃ কায়কোবাদ।
৫। কায়কোবাদের রচিত কবিতার নাম কি? উঃ বাংলা আমার
৬। কায়কোবাদের অশ্রুমালা কাব্যগ্রন্থের মূল সুর
কি? উঃ প্রেম-বেদনা, আবেগ ও আনন্দ বিরহ।
…………………………………………
●➢জসীমউদদীন (১৯০৩-১৯৭৬) ★★
১। জসীমউদদীন কোথায় জন্মগ্রহন করেন? উঃ
মাতুলালয়, তাম্বুলখানা গ্রাম, ফরিদপুর।
২। জসীমউদদীনের উপাধি কি? উঃ পল্লীকবি।
৩। জসীমউদদীন ছাত্র থাকা অবস্থায় তাঁর কোন
কবিতা কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমিকের পাঠ্যে তালিকাভুক্ত করা হয়? উঃ কবর কবিতা।
৪। কবর কবিতাটি জসীমউদদীনের কোন
কাব্যগ্রন্থের অন্তর্ভূক্ত? উঃ রাখালী।
৫। জসীমউদদীনের কবর কবিতাটি কোন
পত্রিকায় ছাপা হয়? উঃ কল্লোল পত্রিকায়।
৬। জসীমউদদীনের বিখ্যাত কাব্যগ্রনথগুলো কি
কি?
উঃরঙ্গিলা নায়ের মাঝি , হাসু, রুপবতী, সকিনা,
রাখালীকে, বালুচরের, সোজান বাদিয়ার ঘাটে , মাটির
কান্না , নকশী কাঁথার মাঠের ও এক পয়সার বাঁশি। ছন্দে ছন্দে মনে রাখা যায়ঃ
রঙ্গিলা নায়ের মাঝি হাসু রুপবতী সকিনা ও রাখালীকে
নিয়ে বালুচরের ধানক্ষেতের মধ্য দিয়ে সোজান
বাদিয়ার ঘাটে গিয়ে এক পয়সার বাঁশি কিনে ফিরে আসার
সময় নকশী কাঁথার মাঠের মাটির কান্না দেখল।
৭। জসীমউদদীনের রচিত নাটকগুলো কি কি?
উঃ পদ্মাপাড়, বেদের মেয়ে, মধুমালা, পল্লীবধু ও
গ্রামের মায়া।
৮। জসীমউদদীনের রচিত একমাত্র উপন্যাসের
নাম কি? উঃ বোবা কাহিনী। ৯। নকসী কাঁথার মাঠ কাব্যগ্রন্থটি কত সালে প্রকাশিত
হয়? উঃ ১৯২৯ সালে।
১০। নকসী কাঁথার মাঠ কাব্যগ্রন্থটির ইংরেজি
অনুবাদের নাম কি? উঃ ‘Field of the Embroidery Quilt’
১১। নকসী কাঁথার মাঠ কাব্যগ্রন্থটির ইংরেজি
অনুবাদকের নাম কি? উঃ ই. এম. মরফোর্ড।
১২। জসীমউদদীনের ছদ্মনাম কি?
জমীরউদ্দীন মোল্লা।
১৩। জসীমউদদীন কত সালে একুশে পদক পান? উঃ ১৯৭৬ সালে।
…………………………………………
●➢ দীনবন্ধু মিত্র ( ১৮৩০-১৮৭৩) ★★
১। নীলকরদের অত্যাচার অবলম্বনে রচিত
দীনবন্ধু মিত্রের নাটকের নাম কি? উঃ নীল দর্পণ
(১৮৬০) ২। দীনবন্ধু মিত্রের কাব্যগুলো কি কি? উঃ
সুরধুনী কাব্য ও দ্বাদশ কবিতা।
৩। দীনবন্ধু মিত্রের রচিত প্রহসনগুলো কি কি? উঃ
বিয়ে পাগলা বুড়ো, সধবার একাদশী।
৪। দীনবন্ধু মিত্রের রচিত নাটকগুলো কি কি? উঃ নীল দর্পণ, নবীন তপস্বিনী, লীলাবতী,
জামাই বারিক ও কমলে কামিনী।
৫। দীনবন্ধু মিত্রের রচিত নীল দর্পণ নাটকটি
ইংরেজিতে অনুবাদ করেন কে? উঃ মাইকেল
মধুসূদন দত্ত। ৬। নীল দর্পণ নাটকটি প্রথম কোথায় মঞ্চস্থ হয়?
উঃ ঢাকায়।
…………………………………………
●➢ফররুখ আহমেদ (১৯১৮-১৯৭৪)★★
১। ফররুখ আহমেদ কোথায় জন্মগ্রহন করেন? উঃ
মাঝআইল গ্রাম, যশোর।
২। ফররুখ আহমেদ রচিত কাব্যগ্রন্থগুলোর নাম কি
কি?
উঃসাত সাগরের মাঝি , নৌফেল, হাতেম তায়ী , সিরাজাম
মুনিরা ও মুহূর্তের কবিতা। ছন্দে ছন্দে মনে রাখা যায়ঃ
ঝড়ের কবলে পরে সাত সাগরের মাঝি, হাতেম
তায়ী- সিরাজাম মুনিরা ও নৌফেলকে বিপদের
মুহূর্তের কবিতা পড়তে বললেন।
৩। ফররুখ আহমেদ রচিত শিশুতোষ গ্রন্থের নাম কি ? উঃ পাখির বাসা।
৪। ফররুখ আহমেদ রচিত পাখির বাসা গ্রন্থের জন্য
তিনি কোন পুরস্কার লাভ করেন? ইউনেস্ক পুরস্কার
(১৯৬৬)
৫। ফররুখ আহমেদ রচিত সাত সাগরের মাঝি গ্রন্থে কতটি কবিতা আছে? উঃ ১৯ টি।
…………………………………………
●➢বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধায় (১৮৩৮-১৮৯৪) ★★
১। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধায়ের রচিত প্রথম
কাব্যগ্রন্থের নাম কি? উঃ ললিতা তথা মানস।
২। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধায়ের রচিত প্রথম বাংলা উপন্যাসের নাম কি? উঃ দুর্গেশনন্দিনী।
৩। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধায়ের উপন্যাসগুলো কি
কি?
উঃইন্দিরা, আনন্দ মঠের , বিষবৃক্ষের,
দুর্গেষনন্দীনি, কপালকুণ্ডলা, কৃষ্ণকান্তের উইল , রাজসিংহ, দেবী চৌধুরানীর , চন্দ্রশেখর, শীতারাম,
মৃণালীনি, রাধারানীকে , রজনীতে ও
যুগলাঙ্গুরীয়
ছন্দে ছন্দে মনে রাখা যায়ঃ
এক রজনীতে ইন্দিরা রোডে আনন্দ মঠের সামনে বিষবৃক্ষের নিচে দাড়িয়ে দুর্গেষনন্দীনি
ও কপালকুণ্ডলা কৃষ্ণকান্তের উইল পড়ছিলো। কিন্তু
রাজসিংহ তা দেখে দেবী চৌধুরানীর দুই ছেলে
চন্দ্রশেখর এবং শীতারাম ও দুই মেয়ে মৃণালীনি
ও রাধারানীকে বলে দিলে তারা ঐ যুগলাঙ্গুরীয়কে শাস্তি দেওয়ার জন্য প্রস্তুত
হলো।
৪। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধায়ের কাব্যগ্রন্থগুলো কি
কি?
উঃলোকরহস্য, কমলকান্তের দপ্তর, বিবিধ সমালোচনা, সাম্য, কৃষ্ণচরিত্র ও ধর্মতত্ত্ব
অনুশীলন।
৫। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধায়ের ছদ্মনাম কি? উঃ
কমলাকান্ত।
৬। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধায়ের সম্পাদিত পত্রিকার নাম কি? উঃ বঙ্গদর্শন ।
…………………………………………
●➢মাইকেল মধুসূদন দত্ত (১৮২৪- ১৮৭৩) ★★
১) মাইকেল মধুসূদন দত্তের প্রথম প্রকাশিত
গ্রন্থের নাম কি? উঃ Captive Ladie ( ১৮৪৯)
২) মাইকেল মধুসূদন দত্তের রচিত প্রহসনগুলো কি কি?
উঃএকেই কি বলে সভ্যতা ও বুড় সালিকের ঘাড়ে
রোঁ।
৩। মাইকেল মধুসূদন দত্তের রচিত বাংলা নাটকগুলো
কি কি? উঃ শর্মিষ্ঠা, পদ্মাবতী ও কৃষ্ণকুমারী। ৪। মাইকেল মধুসূদন দত্তের রচিত কাব্যগ্রন্থগুলো
কি কি? উঃ তিলোত্তমাসম্ভার কাব্য, বীরাঙ্গনা কাব্য ও
ব্রজাঙ্গনা।
৫। মাইকেল মধুসূদন দত্তের রচিত অমর মহাকাব্যের
নাম কি? উঃ মেঘনাদবধ কাব্য।
৬। বীরাঙ্গনা কাব্যটি কোন ধরনের কাব্য? উঃ
পত্রকাব্য।
৭। অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক কে? উঃ মাইকেল
মধুসূদন দত্ত।
…………………………………………
●➢মীর মশাররফ হোসেন (১৮৪৭- ১৯১১) ★★ ১। মীর মশাররফ হোসেন সম্পাদিত পত্রিকা দু’টির
নাম কি কি? উঃ আজীজননেহার ও হিতকারী।
২।মীর মশাররফ হোসেনের প্রথম গ্রন্থ
কোনটি? উঃ রত্নবতী
৩। মীর মশাররফ হোসেনের নাটক গুলো কি কি? উঃ জমীদার দর্পণ, বসন্তকুমারী, বেহুলা
গীতাভিনয়, টালা অভিনয়, নিয়তি কি অবনতি, ভাই ভাই
এইতো চাই, ফাঁস কাগজ, একি, বাঁধা খাতা ইত্যাদি।
৪। মীর মশাররফ হোসেনের গদ্য ও অন্যান্য
গ্রন্থগুলো কি কি? উঃ রত্নবতী, বিষাদসিন্ধু, গোজীবন, উদাসীন
পথিকের মনের কথা, তহমিনা, রাজিয়া খাতুন, এসলামের
জয়, মৌলুদ শরীফ, গোরাই ব্রিজ, পঞ্চনারী, বিবি
খোদেজার বিবাহ মদীনার গৌরব ও মুসলমানের বাংলা
শিক্ষা।
৫। মীর মশাররফ হোসেনের একমাত্র প্রহসন
কি? উঃ এর কি উপায়?
৬। মীর মশাররফ হোসেনের
আত্মজীবনীমূলক উপন্যাসের নাম কি? উঃ গাজী
মিয়াঁর বস্তানী
৭। মীর মশাররফ হোসেনের
আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ কি কি ? উঃ আমার
জীবনী ও কুলসুম জীবনী।
৮। মীর মশাররফ হোসেনের ছদ্মনাম কি ছিলো?
উঃ গাজী মিয়াঁ
…………………………………………
●➢রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (১৮৬১-১৯৪১)★★
১। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তার পিতামাতার কততম সন্তান? উঃ
তিনি তাঁর মা বাবার চতুর্দশ সন্তান।
২। কত বছর বয়সে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রথম
কবিতা প্রকাশিত হয়? উঃ তের বছর বয়সে।
৩। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রথম প্রকাশিত
কাব্যগ্রন্থের নাম কি? উঃ কবি কাহিনী।
৪। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রথম প্রকাশিত নাটকের
নাম কি? উঃ বাল্মীকি প্রতিভা।
৫। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থেউপন্যাসের নাম কি? উঃ বৌ ঠাকুরাণীর হাট।
৬। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রথম প্রকাশিত ছোট
গল্পের নাম কি? উঃ ভিখারিনী।
৭। বাংলা ছোট গল্পের জনক বলা হয় কাকে? উঃ
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে।
৮। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছদ্মনাম কি? উঃ ভানুসিংহ ঠাকুর।
৯। গীতাঞ্জলি কাব্য কত সালে প্রকাশিত হয়? উঃ
১৯১০ সালে।
১০। গীতাঞ্জলি বা Song Offerings এর ভূমিকা
লেখেন কে? উঃ ইংরেজ কবি ডব্লিউ বি ইয়েটস।
১১। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কাব্যগ্রন্থগুলো কি কি?
উঃ ভানুসিংহ, গীতাঞ্জলি, , প্রভাত সংগীত, সন্ধ্যা
সংগীত , বিচিত্রা, পূরবী,, পত্রপুট, শ্যামলী, মহুয়া,
সোনার তরী , খেয়া, হিন্দুমেলার উপহার , ক্ষণিকা,
নবজাতক, নৈবেদ্য, জন্মদিন, রোগশয্যা, আরোগ্য , কণিকা, চৈতালি, চিত্রা, মানসী, বনফুল, মায়ার খেলা , ছবি
ও গান , বলাকা, সানাই , গীতালি, কল্পনা, কড়ি ও কোমল ও শেষ লেখা।
ছন্দে ছন্দে মনে রাখা যায়ঃ ভানুসিংহ গীতাঞ্জলির প্রভাত সংগীত, সন্ধ্যা সংগীত
ও বিচিত্রা গাইতে গাইতে পূরবী, পত্রপুট, শ্যামলী
ও মহুয়াকে সাথে নিয়ে সোনার তরী খেয়ায়
করে হিন্দুমেলার উপহার কিনতে গেল। এদিকে
সেদিন ছিলো ভানুসিংহের স্ত্রী ক্ষণিকার নবজাতক নৈবেদ্যর জন্মদিন। ক্ষণিকা রোগশয্যা থেকে আরোগ্য লাভ করার পর তার বোন কণিকা, চৈতালি, চিত্রা ও মানসীদের নিয়ে বনফুলের মিষ্টি
খেলো। বাসায় ফেরার আগে তারা বলাকা সিনেমা
হলে মায়ার খেলা ছবি ও গান দেখল। ভানু সিংহ তার নবজাতক পুত্রের কথা শুনে সানাই ও গীতালি
বাজাতে বাজাতে কল্পনার রাজ্যে হারিয়ে যায় এবং কড়ি
ও কোমল নিয়ে বাসায় ফিরে এসে তার বিখ্যাত
শেষ লেখাটি পুত্রকে উৎসর্গ করেন।
১২। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উপন্যাসগুলো কি কি? উঃ শেষের কবিতা, যোগাযোগ, চোখের বালি,
গোরা, চতুরঙ্গ, ঘরে বাইরে ও চার অধ্যায়।
১৩। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নাটকগুলো কি কি?
উঃ বিসর্জন, রাজা, ডাকঘর, অচলায়তন, চিরকুমার সভা,
রক্তকবরী ও তাসের দেশ। ১৪। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কতবার ঢাকায় আসেন? উঃ ২
বার।
…………………………………………
●➢বেগম রোকেয়া (১৮৮০-১৯৩২) ★★
১। বেগম রোকেয়ার রচিত উপন্যাসের নাম কি? উঃ
পদ্মরাগ। ২। বেগম রোকেয়ার গ্রন্থ সমূহ কি কি?
উঃ সুলতানার স্বপ্ন, ডিলিসিয়া, অবরোধবাসিনী, পদ্মরাগ
ও মতিচূর।
ছন্দে ছন্দে মনে রাখা যায়ঃ
সুলতানার স্বপ্ন ছিলো ডিলিসিয়াদের মত অবরোধবাসিনীদের মুক্ত করে তাদের হাতে পদ্মরাগ ও মতিচূর ফুল তুলে দেবেন।
৩। বেগম রোকেয়া মূলত কি হিসেবে পরিচিত? উঃ
মুসলিম নারী জাগরনের অগ্রদূত।
৪। বেগম রোকেয়ার লেখাগুলো কোন কোন পত্রিকায় প্রকাশিত হত? উঃ নবনূর, সওগাত ও
মোহাম্মাদী।

 উঃ ২
বার।
…………………………………………
●➢বেগম রোকেয়া (১৮৮০-১৯৩২) ★★
১। বেগম রোকেয়ার রচিত উপন্যাসের নাম কি? উঃ
পদ্মরাগ। ২। বেগম রোকেয়ার গ্রন্থ সমূহ কি কি?
উঃ সুলতানার স্বপ্ন, ডিলিসিয়া, অবরোধবাসিনী, পদ্মরাগ
ও মতিচূর।
ছন্দে ছন্দে মনে রাখা যায়ঃ
সুলতানার স্বপ্ন ছিলো ডিলিসিয়াদের মত অবরোধবাসিনীদের মুক্ত করে তাদের হাতে পদ্মরাগ ও মতিচূর ফুল তুলে দেবেন।
৩। বেগম রোকেয়া মূলত কি হিসেবে পরিচিত? উঃ
মুসলিম নারী জাগরনের অগ্রদূত।
৪। বেগম রোকেয়ার লেখাগুলো কোন কোন পত্রিকায় প্রকাশিত হত? উঃ নবনূর, সওগাত ও
মোহাম্মাদী।
ব্যাকরণ সহ অনান্য বিষয়ের মানবন্টন -
Primary School Teacher Exam Syllabus:
1. Bangla
2. English
3. Math
4. General Knowledge (GK)
Primary School Teacher Exam Marks Distribution:
Total Marks: 100
Exam Type: MCQ + Viva
MCQ Exam marks: 80
Viva Marks: 20
MCQ Exam Marks Distribution:
1. Bangla-20
2. English-20
3. Math-20
4. General Knowledge (GK)-20
N.B: 1 Mark for one question and (.25) Negative marking for each wrong answer.
Primary School Teacher Exam Subject wise Suggestions:
Bangla:
1. For Bangla part you have to emphasize more on Grammar.
2. you have to follow Class 8 and 9-10 Grammar textbook.
3. You have to emphasize on 11 literature and biography of the poets and writers of BPSC.
4. ব্যাকরণ থেকে ভাষা, বর্ণ, শব্দ, সন্ধি বিচ্ছেদ, কারক, বিভক্তি, উপসর্গ, অনুসর্গ, ধাতু, সমাস, বানান শুদ্ধি, পারিভাষিক শব্দ, সমার্থক শব্দ, বিপরীত শব্দ, বাগধারা, এককথায় প্রকাশ থেকে প্রশ্ন আসে। সাহিত্য অংশে গল্প বা উপন্যাসের রচয়িতা, কবিতার লাইন উল্লেখ করে কবির নাম থেকে প্রশ্ন আসতে পারে।
বিগত পরীক্ষায় বাংলা থেকে যা এসেছে :
২৭ জুন ও ২৮ আগস্ট ২০১৫ নিয়োগের প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের লিখিত পরীক্ষার প্রশ্নপত্র পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, ব্যাকরণ থেকে ভাষা, বর্ণ, শব্দ, সন্ধি বিচ্ছেদ, কারক, বিভক্তি, উপসর্গ, অনুসর্গ, ধাতু, সমাস, বানান শুদ্ধি, পারিভাষিক শব্দ, সমার্থক শব্দ, বিপরীত শব্দ, বাগধারা, এককথায় প্রকাশ থেকে প্রশ্ন এসেছে। সাহিত্য অংশে গল্প বা উপন্যাসের রচয়িতা, কবিতার পঙ্ক্তি উল্লেখ করে কবির নাম থেকে প্রশ্ন ছিল।
গণিতঃ
পাটিগণিতের পরিমাপ ও একক, ঐকিক নিয়ম, অনুপাত, শতকরা, সুদকষা, লাভক্ষতি, ভগ্নাংশ, বীজগণিতের সাধারণ সূত্রাবলি থেকে প্রশ্ন থাকে। মুখে মুখে ও সূত্র প্রয়োগ করে সংক্ষেপে ফলাফল বের করার অনুশীলন করতে হবে। রাফ করার জন্য প্রশ্নের পাশের খালি জায়গা ও পেন্সিল ব্যবহার করা যেতে পারে।
জ্যামিতিতে ত্রিভুজ, চতুর্ভুজ, বর্গক্ষেত্র, রম্বস, বৃত্ত ইত্যাদির সাধারণ সূত্র ও সূত্রের প্রয়োগ দেখতে হবে। মাধ্যমিক পর্যায়ের পাঠ্যবই বিশেষত অষ্টম ও নবম-দশম শ্রেণির গণিত বই অনুসরণ করলে ভালো হয়।
বিগত পরীক্ষায় গণিত থেকে যা এসেছে :
ঐকিক নিয়ম, অনুপাত, শতকরা, সুদকষা, লাভক্ষতি, ভগ্নাংশ, বীজগণিতের সাধারণ সূত্রাবলি থেকে প্রশ্ন এসেছিল।
ইংরেজিঃ
গ্রামারে Right forms of verb, Tense, Preposition, Parts of Speech, Voice, Narration, Spelling, Sentence Correction- এর নিয়ম জানতে হবে এবং গ্রামার বইয়ের উদাহরণ থেকে চর্চা করতে হবে। মুখস্থ করতে হবে Phrase and Idoims, Synonym, Antonym. ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদ আসতে পারে। তাই বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন সমাধান করলে ভালো করা সম্ভব।
বিগত পরীক্ষায় ইংরেজি থেকে যা এসেছে :
বিগত দুই পর্যায়ের পরীক্ষায় ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদ এসেছে। গ্রামারে Right forms of verb, Tense, Preposition, Parts of Speech, Voice, Narration, Spelling, Sentence Correction থেকে প্রশ্ন এসেছিল।
সাধারণ জ্ঞানঃ
বাংলাদেশ: সাম্প্রতিক বিশ্ব থেকে প্রশ্ন বেশি আসে। বাংলাদেশ অংশে বাংলাদেশের শিক্ষা, ইতিহাস, ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ, ভূপ্রকৃতি ও জলবায়ু, সভ্যতা ও সংস্কৃতি, বিখ্যাত স্থান, বাংলাদেশের রাষ্ট্রব্যবস্থা, অর্থনীতি, বিভিন্ন সম্পদ, জাতীয় দিবস থেকে প্রশ্ন আসে।
আন্তর্জাতিক:
আন্তর্জাতিক অংশে বিভিন্ন সংস্থা, দেশ, মুদ্রা, রাজধানী, দিবস, পুরস্কার ও সম্মাননা, খেলাধুলা থেকে প্রশ্ন থাকে।
সাধারণ বিজ্ঞান:
সাধারণ বিজ্ঞান থেকে বিভিন্ন রোগব্যাধি, খাদ্যগুণ, পুষ্টি, ভিটামিন থেকে প্রশ্ন আসতে পারে।
অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে ভারতীয় উপমহাদেশের ইতিহাস, কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি থেকে প্রশ্ন করা হয়। প্রস্তুতির জন্য সাধারণ জ্ঞান বিষয়ক বিভিন্ন বই বা পত্রিকা থেকে অনুশীলন করতে হবে।
বিগত পরীক্ষায় সাধারণ জ্ঞান থেকে যা এসেছে :
বিগত দুই ধাপের পরীক্ষায় অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে ভারতীয় উপমহাদেশের ইতিহাস, কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি থেকে প্রশ্ন করা হয়। সাম্প্রতিক বিশ্ব, আন্তর্জাতিক অংশে বিভিন্ন সংস্থা, দেশ, মুদ্রা, রাজধানী, দিবস, পুরস্কার ও সম্মাননা, খেলাধুলা থেকে প্রশ্ন হয়েছিল বেশী।
# সরকারি চাকরির বিগত বছরের ৫০০টি প্রশ্নোত্তর
১) ভাষার মূল উপাদান – ধ্বনি
২) আভরণ শব্দের অর্থ – অলংকার
৩) মন্ত্রের সাধন কিংবা শরীর পাতন এখানে কিংবা – বিয়োজক অব্যয়
৪) ঢাকের কাঠি বাগধারার অর্থ – তোষামুদে
৫) বাবুর্চি – তুর্কি শব্দ
৬) শুদ্ধ বানান – মূর্ধন্য
৭) চীনা শব্দ – চা, চিনি
৮) ভাষায় সর্বনাম ব্যবহারের উদ্দেশ্য – বিশেষ্যের পুনরাবৃত্তি দূর করা
৯) সন্ধির প্রধান সুবিধা – উচ্চারণে
১০) কর্মভোগ এড়ানো যায় না এখানে কর্ম অর্থ – কৃতকর্ম
১১) তুমি না বলেছিলে আগামীকাল আসবে? এখানে না – প্রশ্নবোধক অর্থে
১২) পাবক শব্দের সমার্থ – অগ্নি
১৩) মৃন্ময়ী যে উপন্যাসের নায়িকা – সমাপ্তি
১৪) তুমি যাও – অনুজ্ঞা
১৫) সঠিক যে টি – পথের দাবী ( উপন্যাস)
১৬) আত্নঘাতি বাঙালী – নীরদচন্দ্র চৌধুরীর গ্রন্থ
১৭) চতুরঙ্গ পত্রিকার সম্পাদক – হুমায়ুন কবির
১৮) রবীন্দ্রনাথের রচনা – চতুরঙ্গ
১৯) আবোল তাবোল কার – সুকুমার রায়
২০) ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান ছিলেন – উইলিয়াম কেরি
২১) প্রত্যয়গতভাবে শুদ্ধ – উৎকর্ষতা
২২) অমিত্রাক্ষর ছন্দের বৈশিষ্ট্য – অন্তমিল থাকেনা
২৩) চাঁদ – তদ্ভব শব্দ
২৪) পুণ্যে মতি হোক এখানে পুণ্যে – বিশেষ্য
২৫) তার বয়স বেড়েছে কিন্তু বুদ্ধি বাড়েনি – যৌগিক বাক্য
২৬) আনারস, চাবি – পর্তুগিজ শব্দ
২৭) শুদ্ধ বানান – নির্নিমেষ
২৮) বাংলা ভাষায় যতি চিহ্নের প্রচলন করেন – ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর
২৯) সংশয় এর বিপরীত শব্দ – প্রত্যয়
৩০) ইহলোকে যা সামান্য নয় – আলোক সামান্য
৩১) শশী ও কুমুদ চরিত্র দুটি – পুতুল নাচের ইতিকথার
৩২) ভাষায় সাহিত্যের গাম্ভীর্য ও আভিজাত্য প্রকাশ পায় – সাধু ভাষায়
৩৩) রাত্রির সমার্থক নয় – বারিদ
৩৪) ব্রজবুলি হলো – মৈথিলি ভাষার একটি উপভাষা
৩৫) অভিধানে আগে বসবে – চাঁটি শব্দি
৩৬) গাহি সাম্যের গান, ধরণীর হাতে দিল যারা আনি ফসলের ফরমান – নজরুলের সাম্যবাদী কবিতার লাইন
৩৭) অভিনিবেশ শব্দের অর্থ – মনোযোগ
৩৮) সঠিক বাক্য – আমার কথাই প্রমাণিত হলো
৩৯) সন্ধ্যায় সূর্য অস্ত যায় – নিত্যবৃত্ত অতীত
৪০) সাধুরীতির বৈশিষ্ট্য – সর্বনাম ও ক্রিয়াপদ এক বিশেষ গঠন পদ্ধতি মেনে চলে।
১) ঢাক ঢাক গুড় গুড় বাগধারার অর্থ – গোপন রাখার প্রয়াস
২) কোনটি পরিচ্ছদ – শিমুল
৩) যৌগিক বিশোষণের উদাঃ – পন্ডিত জনোচিত উক্তি
৪) প্রত্যয়ান্ত শব্দ – পিপাসা
৫) কোন ত্রয়ীবানান শুদ্ধ – মুমূর্ষু, সংঘর্ষ, বিমর্ষ
৬) কোনটি অঙ্গ ভূষণ – মেখলা
৭) Transliteration এর পরিভাষা – প্রতিবর্ণীকরন
৮) শেক্সপীয়রের টেমিং অব দি শ্রু বাংলা অনুবাদ করেন – মুনীর চৌধুরী
৯) পদাবলীর রচয়িতা – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
১০) এক জাতীয় নয় – তনয়
১১) শামসুর রাহমানের গদ্য গন্থ – স্মৃতির শহর
১২) তুলনাজ্ঞাপক শব্দ – প্রমিত
১৩) লোকটা যে পিছনে লেগেই রয়েছে, কী বিপদ!! এখানে কী – বিরক্তি বোঝায়
১৪) বুদ্ধদেব বসু সম্পাদিত পত্রিকা – কবিতা
১৫) সমার্থক নয় – মরৎ
১৬) The window panes steamed up এর বাংলা – জানালার কাচ ঝাপসা হয়ে গেল
১৭) হাসি ও ব্যঙ্গের নজরুল কাব্য – পুবের হাওয়া
১৮) সমাস গঠিত শব্দ – নরপুঙ্গর ( দ্বন্দ্ব সমাস)
১৯) যৌবন এর বিপরীত শব্দ – জরা
২০) ছেমড়া শব্দটি – সংস্কৃত
২১) দহন কাল উপন্যাস এর জন্য বাংলা একাডেমী সাহিত্য পুরস্কার ২০১২ পদক পান – হরিশংকর
জলদাস
২২) জাফর ইকবালের প্রথম প্রকাশিত সায়েন্স ফিকশন – কপোট্রনিক সুখ দুঃখ ( ১৯৭৬)
২৩) চাচা কাহিনীর লেখক – সৈয়দ মুজতবা আলী
২৪) সোনালী কাবিন কাব্যের রচয়িতা – আল মাহমুদ
২৫) তোমাকে পাওয়ার জন্য হে স্বাধীনতা পংক্তিটির রচনা করেন – শামসুর রাহমান
২৬) শুব্দ বানান – মুমূর্ষু
২৭) যে নারী প্রিয় কথা বলে – প্রিয়ংবদা
২৮) দশানন কোন সমাস – বহুব্রীহি
২৯) Executive – এর পরিভাষা – নির্বাহী
৩০) পর্যালোচনা এর সন্ধি বিচ্ছেদ – পরি + আলোচনা
৩১) মেধাবী শব্দের প্রকৃতি প্রত্যয় – মেধা + বিণ
৩২) গোঁফ খেজুরে অর্থ – নিতান্ত অলস
৩৩) অন্ধজনে দেহ আলো এখানে অন্ধজনে কারক বিভক্তি – সম্প্রদানে ৭মী
৩৪) পৃথিবী শব্দের প্রতিশব্দ নয় – বারি
৩৫) কচ্ছপের কামড় বাগধারার অর্থ – নাছোড় বান্দা
৩৬) লাঠা লাঠি – বহুব্রীহি সমাস
৩৭) ভুল প্রতিশব্দ – ইচ্ছা- পরশ্রীকাতরতা
৩৮) ঠাকুরমার ঝুলি কি জাতীয় সংকলন – রুপকথা
৩৯) সৌম্য এর বিপরীত – উগ্র
৪০) জীবন্মৃত এর ব্যাসবাক্য – জীবিত থেকেও যে মৃত
১) আপদ এর বিপরীত শব্দ – সম্পদ
২) ভূত এর বিপরীত শব্দ – ভবিষ্যৎ
৩) শান্ত এর বিপরীত শব্দ – অনন্ত
৪) কৃতঘ্ন এর বিপরীত শব্দ – কৃতজ্ঞ
৫) অশুদ্ধ বাক্য – সর্বদা পরিস্কৃত থাকিবে
৬) শুদ্ধ বাক্য – তুমি কি ঢাকা যাবে??
৭) শুদ্ধ বাক্য – রহিমা পাগল হয়ে গেছে
৮) শুদ্ধ বাক্য – বুনো ওল, বাঘা তেতুল
৯) বায়ু শব্দের সমার্থক শব্দ – বাত
১০) চাঁদ এর সমার্থক শব্দ – নিশাপতি
১১) সমুদ্র শব্দের সমার্থক – পাথার
১২) রাজা শব্দের সমার্থক – নরেন্দ্র
১৩) জল শব্দের সমার্থক শব্দ – অম্বু
১৪) কৌমুদির প্রতিশব্দ নয় – নলিনী
১৫) অরুন এর প্রতিশব্দ নয় – বিজলী
১৬) নিকেতন এর প্রতিশব্দ নয় – তোয়
১৭) রামা এর প্রতিশব্দ নয় – সুত
১৮) শিক্ষককে শ্রদ্ধা কর। এখানে শিক্ষককে – সম্প্রদান ৭ মী বিভক্তি
১৯) পৌরসভা কোন সমাস – ৬ষ্ঠী তৎপুরুষ সমাস
২০) অর্ক এর প্রতিশব্দ নয় – অনিল
২১) কোনটি সঠিক – আপাদমস্তক
২২) দশানন কোন সমাস – বহুব্রীহি সমাস
২৩) ভূত এর বিপরীত শব্দ – ভবিষ্যত
২৪) রক্ত করবী – নাটক
২৫) বসুমতী শব্দের সমার্থক – ধরিত্রী
২৬) পরার্থ শব্দের অর্থ – পরোপকার
২৭) যে নারী প্রিয় কথা বলে – প্রিয়ংবদা
২৮) সাত সাগরের মাঝি কাব্য – ফররুখ আহমেদ এর
২৯) বৃষ্টি এর সন্ধি বিচ্ছেদ – বৃষ+তি
৩০) রবীন্দ্রনাথের রচনা নয় – বিষের বাঁশী
৩১) গুরুজনে ভক্তিকর এখানে গুরুজনে – কর্মকারক
৩২) বনফুল যার ছদ্মনাম – বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়
৩৩) surgeon এর পরিভাষা – শল্য চিকিৎসক
৩৪) হে বঙ্গ ভান্ডারে তব বিবিধ রতন কার কবিতার লাইন – মাইকেল মধুসূদন দত্ত
৩৫) ব্যথার দান – কাজী নজরুল রচিত গল্প
৩৬) সংশপ্তক কার – শহীদুল্লাহ কায়সার
৩৭) পর্যালোচনার সন্ধি বিচ্ছেদ – পরি + আলোচনা
৩৮) অম্বর শব্দের অর্থ – আকাশ
৩৯) নিরানব্বইয়ের ধাক্কা – সঞ্চয়ের প্রবৃত্তি
৪০) শুদ্ধ বানান – পিপীলিকা
৪১) প্রবচন – পুরোনো চাল ভাতে বাড়ে
৪২) দারিদ্রতা শব্দটি অশুদ্ধ – প্রত্যয়জনিত কারনে।
১) কোন বানানটি সঠিক – ভদ্রোচিত
২) উনপাঁজুরে শব্দরে অর্থ – দুর্বল
৩) উত্তম পুরুষের উদাঃ – আমি
৪) দিনের আলো ও সন্ধ্যার আঁধারে মিলন – গোধূলী
৫) যা দীপ্তি পাচ্ছে – দেদীপ্যমান
৬) আকাশ শব্দের সমার্থক নয় – হিমাংশু
৭) দেশী শব্দ – চাল, চুলা
৮) সন্ধি শব্দের বিপরীত শব্দ – বিয়োগ
৯) কোনটির লিঙ্গান্তর হয় না – কবিরাজ
১০) সকল সভ্যগণ এখানে উপস্থিত ছিলেন এর শুব্দ রুপ – সভ্যগণ এখানে উপস্থিত ছিলেন
১১) বাঁধ্ + অন = বাঁধন কোন শব্দ – কৃদন্ত শব্দ
১২) ধাতু কয় প্রকার – ৩ প্রকার
১৩) রচনাটির উৎকর্ষতা অনস্বীকার্য এর শুব্দ রুপ – রচনাটির উৎকর্ষ অনস্বীকার্য
১৪) দশে মিলে করি কাজ এখানে দশে – কর্তৃকারকে ৭মী বিভক্তি
১৫) স্বরসংগতির উদাহরন – দেশী> দিশী
১৬) পাতায় পাতায় পড়ে নিশির শিশির এখানে পাতায় পাতায় – অধিকরণে ৭মী বিভক্তি
১৭) যে বহু বিষয় জানে – বহুজ্ঞ
১৮) যৌগিক স্বরধ্বনি – ঐ
১৯) সূর্য এর প্রতিশব্দ নয় – হিমকর
২০) কবর কবিতাটি কোন কাব্যের – রাখালী
২১) আহসান হাবীব এর কাব্যগ্রন্থ – আশার বসতি, ছায়াহরিণ, সারাদুপুর
২২) যাহা দিলাম তাহা উজাড় করিয়া দিলাম। – রবীন্দ্রনাথের হৈমন্তী গল্পের উক্তি
২৩) হাজার বছর ধরে রচনা করেন – জহির রায়হান
২৪) এখানে তোর দাদির কবর ডালিম গাছের তলে, তিরিশ বছর ভিজায়ে রেখেছে দুই নয়নের জলে।
এর পরের লাইন — এতটুকু তারে ঘরে এনেছিনু সোনার মত মুখ
২৫) তপুকে আবার ফিরে পাবো, একথা ভুলেও ভাবিনি কোন দিন — জহির রায়হানের একুশের গল্পের
উক্তি
২৬) রবীন্দ্রনাথ নোবেল পান – ১৯১৩ সালে
২৭) রবীন্দ্রনাথের রচনা নয় – মৃত্যু ক্ষুধা
২৮) ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের পারিবারিক পদবি – বন্দোপাধ্যায়
২৯) সুকান্ত ভট্টাচার্য মৃত্যুবরন করেন – ২১ বছরে
৩০) রবীন্দ্রনাথের জন্ম – ২৫ বৈশাখ,১২৬৮ বাংলা
৩১) জীবন থেকে নেয়া, স্টপ জেনোসাইড, লেট দেয়ার বি লাইট – জহির রায়হানের রচনা
৩২) মহাশশান মহাকাব্য – কায়কোবাদ রচনা করেন
৩৩) সনেট এর পংক্তি – ১৪ টি
৩৪) বাংলা কাব্যে অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক – মাইকেল মধুসূদন দত্ত
৩৫) পদ্মা নদীর মাঝি যার লেখা – মানিক বন্দোপাধ্যায়
৩৬) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কাব্য গ্রন্থ নয় – নৌকাডুবি
৩৭) রাজবন্দীর জবানবন্দী কার – কাজী নজরুল ইসলাম
৩৮) গগনে গরজে মেঘ, ঘন বরষা পরের লাইন – কূলে একা বসে আছি, নাহি ভরসা
৩৯) যা অধ্যয়ন করা হয়েছে – অধীত
৪০) যিনি বক্তৃতা দানে পটু – বাগ্মী
১) কষ্টে অতিক্রম করা যায় যা – দুরাতিক্রম্য
২) The rose is a fragrant flower এর বাংলা – গোলাপ সুগন্ধি ফুল
৩) পত্রের গর্ভাংশ বলে – মূল বিষয়কে
৪) কে জানে দেশে সুদিন আসবে কিনা। বাক্যটি প্রকার করে – অনশ্চিয়তা
৫) প্রদীপ নিভে গেল। বাক্যটি – সাধারণ অতীত কালের
৬) আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি গানটির রচয়িতা – আঃ গাফফার চৌধুরী
৭) সংশয় এর বিপরীত – প্রত্যয়
৮) আরোহন এর বিপরীত – অবরোহণ
৯) সূর্য এর প্রতিশব্দ – আদিত্য
১০) জসীমউদদীন রচিত গ্রন্থ – সোজন বাদিয়ার ঘাট
১১) শুদ্ধ বাক্য – আজ কাল বানানের ব্যাপারে সব ছাত্রই অমনোযোগী
১২) শুদ্ধ বানান – আলস্য, ঘূর্ণায়মান
১৩) প্রতিশব্দ নয় – আগুন – কর, আনন্দ- দিপ্তী, বন- সরোজ
১৪) যে সত্য কথা বলে, তাকে সকলে বিশ্বাস করে এর সরল বাক্য – সত্যবাদীকে সকলে বিশ্বাস করে
১৫) সঠিক অর্থ সমূহ – হাতের পাঁচ- শেষ সম্বল, চাঁদের হাট- প্রিয়জন সমাগম, কাক নিদ্রা- অগভীর
নিদ্রা, শিরে সংক্রান্তি – আসন্ন বিপদ, একচোখা – পক্ষপাত দুষ্টু
১৬) দুর্দিনের যাত্রী গ্রন্থের রচয়িতা – কাজী নজরুল ইসলাম
১৭) বিদ্রোহী কবিতাটি কোন কাব্যের – অগ্নিবীণা
১৮) আবার আসিব ফিরে ধান সিঁড়িটির তীরে কোন কবির কথা – জীবনন্দ দাশ
১৯) মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ কবি – ভারত চন্দ্র
২০) হরতাল – গুজরাটি শব্দ
২১) জাতীয় স্মৃতি সৌধের স্থপতি – সৈয়দ মঈনুল হোসেন
২২) সোজন বাদিয়ার ঘাট এর রচয়িতা – জসীম উদদীন
২৩) শরৎচন্দ্রের রচনা নয় – চোখের বালি
২৪) শুদ্ধ বানান – স্বায়ত্তশাসন
২৫) অপপ্রয়োগের দৃষ্টান্ত – একত্রিত
২৬) শকট শব্দের অর্থ – মাছ
২৭) শেষ লেখা কি জাতীয় রচনা – কাব্য
২৮) যে বিষয়ে কোন বিবাদ নেই – অবিসংবাদী
২৯) কাজলা দিদি কি – যতীন্দ্রমোহন বাগচী রচিত কবিতা
৩০) নীল দর্পন নাটক প্রকাশিত হয় – ঢাকা থেকে
৩১) মেঘনাদবধ কাব্য প্রকাশিত হয় – ১৮৬১ সালে
৩২) পদ্মাবতী কার রচনা – আলাওল
৩৩) ভানুসিংহ যার ছদ্মনাম – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
৩৪) রবীন্দ্রনাথ নোবেল পান – ১৯১৩ সালে
৩৫) বাংলা উপসর্গ – অনা
৩৬) চন্ডীদাস যে যুগের কবি – মধ্যযুগ
৩৭) কলা দেখানো অর্থ – ফাঁকি দেয়া
৩৮) বেগম রোকেয়ার রচনা নয় – পদ্মনী
৩৯) প্রথম বাংলা পত্রিকা – দিকদর্শন
৪০) হাত চালাও মানে – তাড়াতাড়ি করা
৪১) কোন রচনার জন্য নজরুলের জেল হয় – আনন্দময়ীর আগমনে
৪২) বঙ্কিম এর বিপরীত –ঋজু
১) অপোগন্ড শব্দের অর্থ – অপ্রাপ্তবয়স্ক, অপদার্থ
২) বাবা – তুর্কি শব্দ
৩) বাজারে কাটা অর্থ – বিক্রি হওয়া
৪) বীরবল ছদ্মনাম – প্রমথ চৌধুরী
৫) সওগাত শব্দের অর্থ – উপহার
৬) ব্যাঘাত এর বিশেষণ – ব্যাহত
৭) ফুলদানি শব্দের দানি- র ভাষিক পরিচয়, – শব্দপ্রত্যয়
৮) বাংলা ভাষায় সনেট প্রবর্তন করেন – মধুসূদন দত্ত
৯) বিলাসী গল্পটি – শরৎচন্দ্রের
১০) সিডর – সিংহলি ভাষার শব্দ
১১) দোহারা শব্দের অর্থ – মোটাও নয়, রোগাও নয়
১২) অপপ্রয়োগের দৃষ্টান্ত – নির্ভরশীলতা
১৩) Barren শব্দরে অর্থ – ঊষর
১৪) অশুদ্ধ বানান – মরুদ্যান, আয়ত্ব
১৫) জঙ্গম শব্দের অর্থ – গতিশীল
১৬) পাঞ্জেরী কবিতাটি – ফররুখ আহমেদ এর
১৭) ক্ষুণ্নিবৃত্তি এর সন্ধিবিচ্ছেদ – ক্ষুধ+ নিবৃত্তি
১৮) বায়স শব্দের অর্থ – কাক
১৯) নজরুল ইসলাম সম্পাদিত পত্রিকা – লাঙ্গল
২০) কবর নাকটটি – মুনীর চৌধুরীর
২১) বাংলা উপন্যাসের জনক – বঙ্কিম চন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
২২) সন্ধি ব্যাকরণের আলোচিত হয় – ধ্বনিতত্ত্বে
২৩) রাবণের চিতা বাগধারার অর্থ – চির অশান্তি
২৪) শিখা পত্রিকা কোন সংগঠনের – মুসলিম সাহিত্য সমাজ
২৫) কমলা কান্তের দপ্তর যে শ্রেণীর রচনা – প্রবন্ধ
২৬) বিজ্ঞান শব্দের বি উপসর্গের অর্থ – বিশেষ
২৭) আমার সন্তার যেন থাকে দুধে ভাতে এই প্রার্থনা – ঈশ্বরী পাটনীর
২৮) দশে মিলে করি কাজ বাক্যে দশে – কর্তৃকারকে ৭মী বিভক্তি
২৯) নজরুল কারাবরণ করেন – আনন্দময়ীর আগমনে কবিদার জন্য
৩০) বেগম রোকেয়ার রচনা – মতিচুর, পদ্মরাগ, অবরোধবাসিনী
৩১) স্বাধীনতা হীনতায় কে বাঁচিতে চায় কার কথা – রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়
৩২) বাংলায় টি.এস এলিয়টের কবিতা প্রথম অনুবাদ করেন – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
৩৩) এ সাবানে কাপড় কাচা চলবে না এখানে সাবানে – করনে ৭মী
৩৪) জানালা শব্দটি – ফারসি শব্দ
৩৫) বাংলা ভাষার প্রথম সাময়িকী – দিক দর্শন
৩৬) ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহর মতে বাংলা ভাষার উৎপত্তি – গৌড়ীয় প্রাকৃত থেকে
৩৭) বসন্তকুমারী নাটকের রচয়িতা – মীর মশাররফ হোসেন
৩৮) বাংলা সাহিত্যে ছন্দের যাদুকর – সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত
৩৯) পড়েছি মোগলের সাথে খানা খেতে হবে এক সাথে। এর অর্থ – বিপদে পড়ে কাজ করা।
# সোনালী_ব্যাংক_অফিসার , সিনিয়র অফিসার ২০১০
১) শুদ্ধ বানান – মুহুর্মুহু
২) যে পুরুষ বাচক শব্দের দুটি স্ত্রী বাচক শব্দ আছে – ভাই
৩) টীকা ভাষ্য বাগধারাটির অর্থ – দীর্ঘ আলোচনা
৪) পাথরে পাঁচ কিল বাগধারার অর্থ – প্রবল সৌভাগ্য
৫) বহুব্রীহি সমাস – দশানন
৬) পানির সমার্থক শব্দ – উদক
৭) কোথাও উন্নত কোথাও অবনত এককথায় – বন্ধুর
৮) যা লাফিয়ে চলে – প্লবক
৯) বিপদে মোরে রক্ষাকর এ নহে মোর প্রার্থনা – সরল বাক্য
১০) তার বয়স বাড়লেও বুদ্ধি বাড়েনি – সরল বাক্য
১১) মঙ্গল কাব্যের কয়টি অংশ থাকে – ৫টি
১২) মধুসূদন দত্ত রচিত পত্রকাব্য – বীরাঙ্গনা
১৩) রবীন্দ্রনাথ সুভাষ চন্দ্রকে উৎসর্গ করেন – তাসের দেশ
১৪) ঢাকা থেকে প্রকাশিত প্রথম গ্রন্থ – নীলদর্পন
১৫) চর্যাপদের পদগুলি টীকার মাধ্যমে ব্যাখা করেন – মুনি দত্ত
১৬) জহির রায়হানের রচনা – আরেক ফাল্গুন
১৭) নজরুল রচিত নাটক – ঝিলিমিলি
১৮) মুনির চৌধুরী রচিত কবর একটি – নাটক
১৯) পঞ্চতন্ত্র রচনা করেন – সৈয়দ মুজতবা আলী
২০) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য রচনা করেন – বড়ু চন্ডীদাস
২১) সমুদ্র শব্দের সমার্থক – পাথার
২২) ঐহিক এর বিপরীত শব্দ – পারত্রিক
২৩) নাটিকা কোন অর্থে স্ত্রীবাচক শব্দ – ক্ষুদ্রার্থে
২৪) দ্বিগু সমাস – চৌরাস্তা
২৫) যার চক্ষুলজ্জা নাই – চশমখোর
২৬) যা অবশ্যই ঘটবে – অবশ্যম্ভাবী
২৭) শুদ্ধ বানান – স্বায়ত্তশাসন
২৮) শুদ্ধ বানান – অগ্নিবীণা
২৯) ধর্মের ষাঁড় বাগধারার অর্থ – স্বার্থপর
৩০) একচোখা – পক্ষপাত দুষ্টু
৩১) বাংলায় স্বরবর্ণ -১১ টি
৩২) বাংলাদেশের রণসঙ্গীতের রচয়িতা – নজরুল ইসলাম
৩৩) বিষাদসিন্ধু যাঁর রচনা – মীর মশাররফ হোসেন
৩৪) চর্যাপদের কবির সংখ্যা – ২৩ জন
৩৫)সাহিত্যে যুগ সন্ধিক্ষণের কবি – ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত
৩৬) চর্যাপদ আবিষ্কার করেন – হরপ্রসাদ শাস্ত্রী
৩৭) মধ্যযুগের কাব্যের একটি ধারা – মঙ্গল কাব্য
৩৮) মাত্রাহীন বর্ণ – ১০টি
৩৯) রোহিণী চরিত্রটি – কৃষ্ণকান্তের উইল উপন্যাসের
৪০) আমার সোনার বাংলা কবিতার প্রথম – ১০ লাইন জাতীয় সঙ্গীত
৪১) ষাট বছর পূর্ণ হওয়ার উৎসব – হীরক জয়ন্তী
৪২) ভুল সন্ধি বিচ্ছেদ – দু+ লোক= দ্যুলোক
৪৩) বাবা শব্দটি – তুর্কি
৪৪) হাসি দিয়ে ঘরটিকে ভরিয়ে রাখত সে। এখানে – দিয়ে হলো – অনুসর্গ
৪৫) বগুড়ার চিনিপাতা দই সুস্বাদু। বাক্যটির চিনিপাতা – করণ কারক
৪৬) সংবাদপত্র – মধ্যপদলোপী কর্মধারয় সমাস
৪৭) ভানুমতির খেল মানে – ভেলকিবাজি
৪৮) সকল ছাত্ররাই যথাসময়ে উপস্থিত হয়েছে – বচনের ভুল
৪৯) বাংলা গদ্যরীতির জনক – বিদ্যাসাগর
৫০) ছায়া হরিন যাঁর রচনা – আহসান হাবীব
৫১) সুসময়ের বন্ধু – বসন্তের কোকিল
৫২) সমুদ্র শব্দের সমার্থক নয় – অদ্রি
৫৩) অশুদ্ধ বানান – ভূল
৫৪) খদ্দর -গুজরাটি শব্দ
৫৫) সঠিক ণ এর ব্যবহার হয়েছে – তৃষ্ণা শব্দে
৫৬) জাতি+ অভিমান – জাত্যভিমান
৫৭) কোনটি প্রবন্ধ – কালান্তর
৫৮) ক্ষুদ্র অর্থে উপ ক্যবহৃত হয়েছে – উপসাগর শব্দে
৫৯) কন্যার সমার্থক শব্দ নয় – সহোদরা
৬০) বাহুল্যদোষে দুষ্টু শব্দটি – অধীনস্থ
Recent bank job solution (2018-2019)
Part - 02 
File size: 111.00 MB
Quality: Best

Go To Another Download 
Part - 01 & 03

Close

Post a Comment

Use Comment Box ! Write your thinking about this post and share with audience.

Previous Post Next Post

Sponsord

Sponsord