যে বা যারা অর্থায়ন ( Finance)  ভালো করে চর্চা করবেন না তারা HSC Final এ ভালো কিছু করতে পারবেন না  । এটি কোনো কঠিন subject না কিন্তু চর্চার অভাব থাকলে এই বিষয়ে নিচ্ছিত ফেল করতে পারেন ।  তাই চেষ্টা করুন প্রতিদিন  প্রাকটিস করার জন্য  । নিয়োমিত করলে এই বিষয়ে আপনি ৮০% মার্ক পাবেন এতে কোনো ভুল নেই  । পিডিএফ ফাইল হিসেবে পেতে চাইলে কমেন্টে আপনার ইমেইল আইডি লিখে কমেন্ট করুন  । পেয়ে যাবেন  

 

অর্থের সময় মূল্য এই অধ্যায়টি অনেক জটিলতায় ফেলে দেয়।  অথচ এই দেখবেন তুলোনামূলক সূত্র কম আছে  ।  আসুন দেখে নেই পরিক্ষার হলে এই অধ্যায়ের অংকে কি কি সমস্যা হয়  - ১) আপনার চর্চার অভাব থাকলে আপনি বুঝতেই পারবেন না আপনাকে কি করতে হবে  ।  ২) সবচেয়ে বড় সমস্যা আপনি কোন সূত্র ব্যাবহার করবেন তা সঠিক ভাবে বসানো । তা না হলে অংকটি প্রথম থেকেই ভুল ভাবে শুরু করা হবে । ৩) অংকে বর্তমান মুল্য আছে না ভবিষ্যৎ মুল্য আছে এই নিয়ে আপনি কনফিউশনে পরতে পারেন। ৪) আপনি সবকিছু ঠিক করলেন কিন্তু ক্যালকুলেশনে ভুল হতে পারে ।  কারন পরিক্ষার হলে টেনশনে এগুলো হয় । অথচ এই অংকটি আপনি বাসাই ৫মিনিটে করে ফেলছেন এখন ১৫ মিনিটেও হচ্ছে না  । এই সমস্যাগুলো এড়ানোর উপায় - ১) অংক টা ভালো করে পড়ুন এবং সম্পুর্ন অংকে কি কি উপাদান আছে দেখে নিন । যে উপাদানগুলো দেওয়া আছে রাফ হিসেবে লিখুন   যেমন -  Fv =  *** i= ** n = ** A = ** m = **  pv = ? এখন আপনি দেখলেই বুঝবেন কোন সূত্রটি ব্যাবহার করতে হবে  নিজেকে শান্ত রাখবেন কোনো ভুল সিধান্ত নিবেন না । না পারলে ছেরে দিন অন্য অংক করুন ।

  

মূলধন ব্যয় WACC  একটা টেবিল ভালো করে দেখুন  । এই টেবিল নির্নয় করতে হলে সকল উৎসের ব্যয় বের করতে হবে  ।  এবং উৎসের ভার (weight)  ও বের করতে হবে  । সূত্রগুলো নিচে দেখুন পেয়ে যাবেন  ।  উৎসগুলো সম্পর্কে বলি সাধারণ শেয়ার ও সংরক্ষিত আয়ের ব্যয় সবসময় চেষ্টা করবেন সূত্রের উপাদান গুলো খুঁজে বের করার তারপর উপাদান অনুযায়ী সূত্র লিখবেন । মনে করুন অংকে Do = আছে g = নেই Po = আছে Fc = নেই আপনি বুঝে ফেলবেন আপনার কোন সুত্রটি ব্যবহার করতে হবে । লক্ষ্য করুন  সাধারণ শেয়ারের ব্যয় ও সংরক্ষিত আয়ের ব্যয় এই দুটি সুত্রের বেশ মিল আছে তাই আপনার বোঝার সুবিধার্থে পাশাপাশি লিখেছি  । যাতেকরে আপনার বুঝতে সুবিধা হয়  । 

 
 
 


 
 
এখানে একটা বিষয় দেখতে পারবেন সেটা হলো ঋনের ব্যয় আর বন্ডের উপার্জন হার এই সুত্রের বেশ মিল রয়েছে ।  তাই দুটি পাশাপাশি দেখানো হলো।  ভালো করে বুঝে নিন  ।
 
সল্প মেয়াদি অর্থায়ন এটা তুলোনামুলক সহজ বলা যায় ।  source গুলো দেওয়া আছে ভালো করে দেখে নিবেন ।  একটু চেষ্টা করলেই পারবেন তবে এই অধ্যায়ের কিছু ব্যাতিক্রম আছে  ।  নিচে দেখুন


এই অধ্যায়ের কিছু অনান্য উৎস আছে দেখে নিন ।  তবে এগুলো তেমন কঠিন কিছু না আপনি একটু চেষ্ট করলেই পারবেন
 
 
 দির্ঘমেয়াদী  অর্থায়ন এখানে কিছু সূত্র দেখতে পাবেন যেগুলো আপনাকে কনফিউশন করে দেবে ।  আগেই বলেছি সবসময় চেষ্টা করবেন সূত্রের উপাদান গুলো খুঁজে বের করার তারপর উপাদান অনুযায়ী সূত্র লিখবেন । আপনি বুঝে ফেলবেন আপনার কোন সুত্রটি ব্যবহার করতে হবে । লক্ষ্য করুন  আপনার যাতে বুঝতে সুবিধা হয় তাই সূত্র গুলো পাশাপাশি লিখেছি ।  দেখলেই বুঝতে পারবেন  ।  
 
 


 
 
মন্তব্য কিভাবে লিখবেন:  যেই বিকল্পটির ঝুঁকি কম সেটা গ্রহনযোগ্য । আর্থিক বিশ্লেষণ এই অধ্যয়ে অনেক সুত্র আছে বলতে পারেন এখানে আংশিক দেওয়া যেগুলো পরিক্ষয় বেশি আসে এগুলো দেওয়া হলো  । আপনার  সম্পুর্ন করতে ইচ্ছে হলে বই থেকে করে নিন ওখানে আরো অনেক সূত্র পাবেন । 
 


মূলধন বাজেটিং এই অধ্যয়ে অনেক সুত্র আছে বলতে পারেন এখানে আংশিক দেওয়া যেগুলো পরিক্ষায় বেশি আসে এগুলো দেওয়া হলো । আপনার সম্পুর্ন করতে ইচ্ছে হলে বই থেকে করে নিন ওখানে আরো অনেক সূত্র পাবেন ।
More HSC Related:

Close

2 Comments

Use Comment Box ! Write your thinking about this post and share with audience.

Post a Comment

Use Comment Box ! Write your thinking about this post and share with audience.

Previous Post Next Post

Sponsord

Sponsord