Facebook account is hacked as soon as you click on this link丨Be careful Recognize the link !

ফেসবুক ব্যবহার করতে করতে দেখলেন ফেসবুকে চটকদার  অফার 1 টাকায় 10 জিবি ইন্টারনেট পেতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন ।  শতকরা  90% মানুষ  এই চটকদার অফারটি নেওয়ার জন্য লিংকে ক্লিক করবেই ,  আর এই ধরনের লিঙ্ক এ ক্লিক করলেই সর্বনাশ ।  লিংকে ক্লিক করা মাত্রই আপনার ফেসবুক আইডি এবং পাসওয়ার্ড অন্যের হাতে চলে যাবে ।  একটি মাত্র ক্লিকেই সর্বনাশ হয়ে যাবে ।
 তাই এই ধরনের ফিশিং লিংকগুলো যাচাই পূর্বক এখানে ভিজিট করুন বিশেষ করে অবাস্তব কোন অফার বা বিশেষ কোন সুবিধা প্রদানের লোভ দেখালে সেখানে সরাসরি ক্লিক না করে একটু যাচাই করার মাধ্যমে লিংকটিতে প্রবেশ করুন ।
সাধারণত কোন কিছুর প্রলোভন দেখিয়ে এই ধরনের লিংক শেয়ার করা হয়,  যেমনঃ

☑ অল্প টাকায় অধিক ইন্টারনেট অফার সংক্রান্ত
☑ বিনামূল্যে টকটাইম নেওয়ার কৌশল
☑ বিনামূল্যে স্মার্ট ফোন জিতে নেওয়ার সুযোগ
☑ লটারি  বা কুপন সংক্রান্ত
☑ বিনামূল্যে ভ্রমণের সুবিধা সংক্রান্ত
☑ বিভিন্ন সিমের টকটাইম  অফার সংক্রান্ত
☑ ফ্রী  মিনিট ভয়েস কল অফার সংক্রান্ত
☑ নতুন নতুন চটকদার অফার বা কুপন সংক্রান্ত

এটি ফেসবুক থেকে সংগ্রাহিত ফেসবুক হ্যাকিং কৌশল -

  • ফিশিং আর মাছ ধরার মাঝে বেশ মিল আছে; মাছ ধরতে যেমনি টোপ ফেলে বসে থাকতে হয় তেমনি ফিশিং লিংক দিয়ে ভিক্টিম ক্লিক করার জন্য অপেক্ষা করতে হয়.ক্লিকেই যেন কেল্লাফতে!
  • মূলত কোডিং হতে আপনি যেকোনো ওয়েবসাইটের ফিশিং পেজ বানিয়ে হ্যাকিং করতে পারেন তথাপি ওয়াপকা সাইটের ফেসবুক ফিশিং সাইট বানানো তো সহজ কথা নয়(অন্তত নিয়োফাইট হ্যাকারদের জন্য কাজটা কঠিন বটে)। আবার ওয়াপকা তো ফিশিং সাইট পেলেই ব্লক করে দেয়.তাহলে?
  • আসুন খুব সহজেই অনলাইন ফিশিং হতে হ্যাকিং শিখি.
  • (১) anomor(.com)  সাইট হতে আপনি সহজেই নতুন একটা একাউন্ট খুলে সেখান হতে ফেসবুকসহ প্রায় ৪০ প্রকার ফিশিং লিংক পাবেন যা ভিক্টর ক্লিক করে লগিন করলেই আপনার একাউন্টের ভিক্টিম প্যানেলে ভিক্টিমের ইউসার ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড পেয়ে যাবেন। এমনকি ভিক্টিমের আইপি এড্রেসও পেয়ে যাবেন।
  • (২) z-shadow(.com)  লিংক হতেও আপনি একইভাবে একাউন্ট ক্রিয়েট করে ফিশিং লিংক সংগ্রহ করে তা হতে ভিক্টিমের ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক করতে পারবেন।
  • (৩) shadowave(.com) লিংক হতেও আপনি ফিশিং লিংক হতে ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক করতে পারবেন। তবে এটার সবচেয়ে এক্সট্রা ফিচার হলো এখান হতে আপনি ফেইক ব্লুটিক ভেরিফাইড ফিশিং পেইজ তৈরী করতে পারবেন যেন ভিক্টিম তাতে সহজেই ম্যানুউপুলেট হয়।
  • এইবার একটা কঠিন কথা হইলো, এখনকার সবাই খুব চালাক যেন ফিশিং লিংক সহজেই বুঝে ফেলবে। আচ্ছা আপনি আপনার ফিশিং লিংক হতে একটা সফটওয়্যার (মিনি অ্যাপ্স আরকি) বানালে কেমন হয়? তাহলে ভিক্টিম ফিশিং লিংক সহজে বুঝতে পারবে না।
  • আপনি web2apk(.com) এর মতোন সাইট হতে সহজেই ফিশিং লিংক হতে apk ফরম্যাটে সহজেই হ্যাকিং সফটওয়ার বানিয়ে নিতে পারেন।
  • শেষকথা→ হ্যাকিং জিনিসটা টেকনিকে নয় বরং আপনার ট্যাকটিসের ওপর নির্ভর করবে তাই মাথার নিউরনে নিউটনে হ্যাকিং গেথে নিতে হবে.তবেই না আপনি হতে পারবেন লীট হ্যাকার !

What is Phising site ? 

ফিশিং সাইট কি ?

ফিশিং ( Phising site ) অনেক টা বর্শি দিয়ে মাছ ধরার মতো একটি টপ দিয়ে রাখবেন মাছ খাইতে আসবে ফেসে যাবে আর যদি চালাক হয় খেয়ে চলে যাবে এটা ছিল মজার মাধ্যমে বলা এখন একটু ভালো ভাবে বলা যাক । ফেসবুক ফিশিং সাইট দেখতে হুবহু ফেসবুকের মতো দেখতে একটি সাইট যেখানে আপনি যদি ভুলেই লগিন করেন তখন আপনার দেওয়া ফেসবুক ইমেল পাসওয়ার্ড সব চলে যাবে যে ঐ সাইটের মালিকের কাছে তখন সে যা ইচ্ছা করতে পারে আপনার আইডি তে । ফেসবুক ছাড়া জিমেইল,টুইটার,ইন্সট্রাগ্রাম ছাড়া আরো ও অন্যান্য সাইটের ফিশিং সাইট থাকতে পারে বেশিভাগ ফেসবুক ফিশিং সাইট ই বেশি দেখা যায় ।

যদি কোন কেউ আপনাকে কোথায় একটি লিংক দিয়ে বলে যে এইখানে আপনার ছবি দিয়ে আইডি খোলা আছে বা এইখানে লগিন করুন এই সুবিধা পাওয়া যাবে অর্থ্যাৎ বিভিন্ন অফার দিয়ে আপনাকে ঐ লিংক প্রবেশ করাতে চাই তাহলো কেমন বুঝবেন সত্যিই ওটা ভালো সাইট না ফিশিং সাইট । এই ক্ষেত্রে বিভ্রান্তি আছে যে অনেক ওয়েব সাইট বা অ্যাপ আছে যারা ফেসবুকের মাধ্যমে তাদের ইউজারদের লগিন এর সুবিধা আছে যেখানে আইডির এর কোন ক্ষতি হবে ওই সাইট গুলো দেখে আবার ভয় করার কিছু নাই ।

তাহলে ফেসবুকের কোন লিংকে কি ক্লিক করব না ?  কোন সাইট ঢুকব না ফেসবুক থেকে ?  অবশ্যই ঢুকবেন সেটা জেনে শুনে আমরা অনেকেই আছি যারা ফেসবুক আইডি হ্যাক হওয়ার ভয়ে ফেসবুকের কোন লিংকে ক্লিক করতে ভয় পাই, ক্লিক করতে চাই না অনেক শিক্ষামূলক সাইটের লিংক দেখে ভয় অবশ্যই তা ঠিক না । ফেসুবকে লিংক মানেই যে হ্যাক তা না বা অন্য সব সাইটের ফেসবুক লগিন করার জন্য যে লিংক দেয় তা যে সব সময় যে ফিশিং সাইট হবে তা না অনলাইনে অনেক টেক টিপস ট্রিক সম্পর্কিত সাইট আছে যারা কোন ট্রিক দেওয়া সময় ফেসবুকের আসল লিংক টা দিয়ে তা ফিশিং সাইট না আপনাদের সুবিধার জন্য কিছু লিংক দিয়ে থাকে ।

আর যদি আপনার একান্ত সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে এই পোস্ট টি পড়ার পর আপনাকে আর চিন্তা করতে হবে না ফিশিং সাইট নিয়ে সহজেই ফিশিং সাইত সনাক্ত করতে পারবেন চিনতে পারবেন । এইখানে আপনাদের কিছু ট্রিক টিপস দিব ফেসবুকে ফিশিং সাইট বা অন্য সব ফিশিং সাইট চেনার উপায় আপনি আপনার কাঙ্ক্ষিত সাইটে লগিন করছেন না অন্য কোথাও । এসব জানার পরে আপনি স্মার্ট ভাবে ফেসবুক বা অন্য কোথায় আপনাকে ফিশিং করার চেষ্টা করলে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে চলে আসতে পারবেন ।

Ways to identifying the phishing sites

ফিশিং সাইট সনাক্তকরণ ও বাঁচার উপায়ঃ

  • আপনার সংবেদনশিল তথ্য আদান-প্রদানে  অবশ্যই একটি আদর্শ সাইটের শুরুতে https:// দিয়ে শুরু হবে । আর যদি সেটা না হয় তবে আপনার তথ্যগুলো অবশ্যই ঝুঁকিতে আছে ।  যেমনঃ আপনার Email ID, Password, Username, Login ID, Bank Account  ইত্যাদি ।
  • প্রথমে লিংক চেক করুন  ইউ আর এল টিক ( URL )  আছে কি না যদি সাইট ফেসবুক হয় তাহলে অবশ্যই facebook.com টা মেইন হবে আর যদি ফিশিং হয় তাহলে ফেসবুকের মতো নাম হবে না মানে ডোমেইন টা অন্য হবে যেমনঃ http://ishanto.me/facebook/index.php?ds_n=MTI1  এই লিংক টি একটি ফিশিং সাইটের এখানে লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন এটি লিংক টা একদম অন্যরকম যেখানে ফেসবুকের টা হবে এই রকম https://facebook.com মানে সাথে মূল ডোমেইন অর্থ্যাৎ faceebook.com থাকতে হবে ।  নিচের স্ক্রিনশট দিকে খেয়াল করুন আর ইউ আর এল দিকে লক্ষ্য করুন এটি ফেসবুক না তবুও ফেসবুকের মতো দেখতে হুবহু একটা ফিশিং সাইট এটি । ফিশিং সাইট গুলো সাধারণ মোবাইল ইউজারদের জন্য বানানো হয়ে থাকে এই জন্য এখানে একটু কেমন দেখাচ্ছে কিন্তু এটা যদি ফোন দিয়ে কেউ ভিজিট করত সেম মোবাইল ভার্সন ফেসুবক হতো আর না বুঝলে লগিন কর দিতেন আর পাসওয়ার্ড চলে যেত সেই লোকের কাছে । 

  • যে সকল সাইট http: দিয়ে শুরু হয় এই সাইটগুলোই ঢোকার পূর্বে একটু সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে । বলছি না সব http: দিয়ে শুরু সাইটগুলো খারাপ হয় । বর্তমানে টেলিটক সাইট দিয়ে আমরা অনেক চাকরির আবেদন করে থাকি, টেলিটক সাইটগুলো সাধারণত http: দিয়ে শুরু হতে পারে তাই http: এর পাশাপাশি মূল সাইটের নাম টি লক্ষ্য করুন কোন অফিশিয়াল সাইট হলে সেখানে প্রবেশ করতে পারেন কোন সমস্যা নেই । তবে নামটি আপনার পরিচিত না হয়ে থাকলে সে ক্ষেত্রে অবশ্যই গুগলে সার্চ করে একটু দেখে নিয়ে তারপরে ভিসিট করুন ।

SecurityMetrics.com

Does that mean HTTP websites are insecure?

The answer is, it depends. If you are just browsing the web, looking at cat memes and dreaming about that $200 cable knit sweater, HTTP is fine. However, if you’re logging into your bank or entering credit card information in a payment page, it’s imperative that URL is HTTPS. Otherwise, your sensitive data is at risk.

উত্তরটি হল, এটা নির্ভরশীল। আপনি যদি কেবল ওয়েব ব্রাউজ করছেন, শুধুমাত্র মেমসটি দেখছেন এবং সেই 200 ডলারের কেবল বোনা সোয়েটারটি সম্পর্কে দেখছেন, HTTP ঠিক আছে। তবে, আপনি যদি আপনার ব্যাঙ্কে লগইন করছেন বা কোনও অর্থপ্রদানের পৃষ্ঠায় ক্রেডিট কার্ডের তথ্য প্রবেশ করছেন, এটি URL টি HTTPS এর পক্ষে আবশ্যক। অন্যথায়, আপনার সংবেদনশীল ডেটা ঝুঁকিতে রয়েছে। 



মূলকথাঃ HTTP দিয়ে শুরু সাইট গুলো শুধুমাত্র ভিজিটের জন্য উপযোগী  কিন্তু আপনার সংবেদনশিল তথ্য প্রদানে এই সাইটগুলো উপযোগী না ।  যেমন আপনাকে লগইন করতে বলা হলো এক্ষেত্রে আপনার আইডি-পাসওয়ার্ড ইত্যাদি সংবেদনশীল বিষয় গুলো প্রবেশ করানো লাগবে তাই যে সকল সাইট এর শুরুতে HTTP থাকে সেগুলোতে লগইন করার পূর্বে একটু যাচাই করে নিতে হবে । 

এই ধরনের সাইট ভিজিট এর পূর্বে আপনার ওয়েব ব্রাউজার আপনাদের সতর্ক করে দিবে ।  এবং সতর্কতা স্বরূপ  একটি মেসেজ দেখাবে । অনেকটা এরকম - 

 
এ ধরনের কোনো  কোন সতর্কতা আপনার ওয়েব ব্রাউজার দেখানো মাত্র একটু চিন্তা-ভাবনার মাধ্যমে ওই সাইটে প্রবেশ করুন ।  ওয়েব ব্রাউজার টি আপনাকে বোঝাতে চাইছে আপনি যে সাইটে এখন প্রবেশ করতে যাচ্ছেন  সেটা তথ্য আদান-প্রদানে নিরাপদ নয় ।  এরপরেও আপনি জেনে বুঝে কোন ভুল করলে সেটা সম্পূর্ণ আপনার নিজেরই দোষ ।  কারণ ওয়েব ব্রাউজার আপনাকে প্রথমেই সতর্ক করে দিয়েছিল ।  অনেকেই এ ধরনের ছোট ছোট বিজ্ঞপ্তি গুলো না পড়েই হুট করে প্রবেশ করে তারাই মূলত বিপদে পড়ে । 
Helping:

একটু মনোযোগ দিয়ে পড়বেন -

দৈনন্দিন লেখাপড়ার সাথে সম্পর্কিত এবং আপনার প্রয়োজনীয় অধিকাংশ বিষয়বস্তুগুলো এখানে পাবেন ।  অনেকেই আছেন যারা সাইটে প্রবেশ  করে একটু ভালো করে না দেখেই হুট করে বের হয়ে যায় এবং পরবর্তী দেশে কমেন্ট করে তার চাওয়ার বিষয়বস্তুগুলো ।  তাদের উদ্দেশ্যে অনুরোধ রইল,  একটু সময় নিয়ে সম্পূর্ণ ওয়েবসাইটি  ঘুরে দেখুন,  আপনার প্রয়োজনীয় অধিকাংশ বিষয়বস্তু এখানে পাবেন ।  এছাড়াও শুরুতে  সার্চ   বক্স দেওয়া আছে  প্রয়োজনে  আপনার  প্রয়োজনীয়  বিষয়বস্তুর নামটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করুন ।
আপনার প্রয়োজনীয় বিষয়বস্তু এতে একটু সময় নিয়ে সম্পূর্ণ সাইটটি দেখলে আপনি পেয়ে যাবেন ।
প্রায় সব ধরনের চাকরির প্রস্তুতি মূলক  বইয়ের পিডিএফ,  বিগত প্রশ্ন  ও সমাধান,  চাকরির পরীক্ষার সময়সূচি, বিভিন্ন চাকরির প্রস্তুতি মূলক নোট,  অধ্যায়ন,  এগুলো সহ  সর্বমোট 1000 এর অধিক ভিন্ন ভিন্ন কনটেন্ট  আপডেট করা হয়েছে ।  এছাড়াও আপনার  যে কোন সমস্যা বা জিজ্ঞাসাগুলো কমেন্ট বক্সে লিখে কমেন্ট করুন ।  আমাদের কমেন্ট মডারেটরগণ  আপনার কমেন্টের রিপ্লে অবশ্যই করবে ।

Close

Post a Comment

Use Comment Box ! Write your thinking about this post and share with audience.

Previous Post Next Post

Sponsord

Sponsord